preloder
বিবিধ বিষয়

নিজের গুনাহের দিকে যখন তাকাই…

সাধারণ মানুষদের মধ্যে এমন কেউ নেই যে গুনাহ করেনি। গুনাহ সবাই-ই করে। ছোট-বড় অনেক গুনাহ। প্রকাশ-অপ্রকাশ্য হরেক রকমের গুনাহ। আল্লাহর হক নষ্টের গুনাহ আবার বান্দার হক নষ্টের গুনাহ। কথার দ্বারা গুনাহ কিংবা কাজের দ্বারা গুনাহ। বিচিত্র এই দুনিয়ায় গুনাহও বৈচিত্রময়।

শত গুনাহ করার পরও আমরা একটা জায়গায় আশা খুঁজে পাই। তা হলো, আল্লাহর ক্ষমা আর রহমত। যখনই কুরআন খুলে দেখতে পাই আল্লাহ বলেছেন “আল্লাহ সকল গুনাহ মাফ করেন”। অন্য জায়গায় যখন পড়ি “নিশ্চয় আল্লাহ তাওবাহ কবুলকারী”। তখন মনের কোণে আশা জাগে। আল্লাহ হয়তো মাফ করবেন, তিনি হয়তো তাওবাহ কবুল করবেন। ফলে জান্নাতে যেতে পারবো। ইনশাআল্লাহ।

আবার যখন নিজের গুনাহের দিকে তাকাই আর আল্লাহর আযাব, জাহান্নামের ভয়াবহ শাস্তির কথা কুরআনের পাতা উল্টালে চোখের সামনে ভেসে ওঠে তখন গা শিহরিত হয়ে ওঠে, চোখটা ছলছল করে ওঠে। আল্লাহর হিসাবের কথা ভাবলেই কেমন যেনো জান্নাতে যাওয়া অসম্ভব মনে হয়। আবার একটু পরেই আল্লাহর রহমত ও মাগফিরাতের কথা শুনলে বা পড়লে অন্তরে একটু প্রশান্তি পাই। মনে হয় আল্লাহ জাহান্নামে দিবেন না।

আসলে আমরা জানি না, কোথায় আমাদের শেষ ঠিকানা। জান্নাত নাকি জাহান্নাম। আমরা শক্তভাবে আশা করি, আল্লাহ আমাদের মাফ করবেন, আমাদেরকে জাহান্নাম থেকে সরিয়ে জান্নাত দিবেন। নিজেদের আমল দিয়ে আমরা জান্নাতে যেতে পারবো না। আল্লাহর রহমতই ভরসা। আল্লাহর রহমত না পেলে জান্নাতের আশা বৃথা। তাই আমাদের উচিত সাধ্যানুযায়ী ফরয-সুন্নাহ ইবাদাত পালন করে যাওয়া, হারাম থেকে দূরে থাকা, আল্লাহর কাছে মাফ চাওয়া, তাওবাহ করা আর আল্লাহর রহমত কামনা করা।


উৎস: শাহাদাৎ হুসাইন খান ফয়সাল রাহিমাহুল্লাহ ভাইয়ের ফেসবুক ওয়াল থেকে

Tags

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close