preloder
পুরুষ | মহিলাদের পাতা

মনুষ্য সমাজে সুন্দরী গুণবতী বধূ ‘মধুরা’ রূপে পরিচিত

বিশেষ করে নতুন বউ হলে মধুর মাধুরী খুবই আলোচিত হয়। অবশ্য পুরানো হয়ে গেলে সেই মাধুরী আর থাকে না। ‘নূতন প্রেমে নূতন বধূ, আগাগোড়া কেবল মধু। পুরাতনে অম্লমধুর একটু ঝাঁঝালো।’ বউ পুরনো হলে আরবী ভাষায় ‘আসল বাস্বাল’ (মধু পিঁয়াজ) হয়ে যায়।
আমরা অনেক সময় ভালো লোকের প্রশংসায় ‘মিষ্টি, অমিয়’ ইত্যাদি বলে থাকি। কোন মেয়ের প্রশংসায় ‘সুইটি, মিষ্টি’ইত্যাদি বলে থাকি। অবশ্য অনেকে ‘লক্ষ্মী’বলে, যা মুসলিমদের বলা বৈধ নয়।

আরবরা কিন্তু মিষ্টি মানুষকে ‘আসাল’ (মধু বা মধুর) বলে। মহানবী (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর হাদীসে এমন বর্ণনা পাওয়া যায়, যাতে বুঝা যায় যে, যে মানুষ সৎকর্ম করার তওফীক লাভ করে, ফলে সে মহান আল্লাহর কাছে ভালো এবং মানুষের কাছে ‘মধু’ হয়।

মহানবী (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন,
((إِذَا أَرَادَ اللَّهُ عَزَّ وَجَلَّ بِعَبْدٍ خَيْرًا عَسَّلَه)).
“মহান আল্লাহ যখন কোন বান্দার কল্যাণ চান, তখন তাকে মধু বানিয়ে নেন।” সাহাবাগণ জিজ্ঞাসা করলেন, ‘মধু বানিয়ে নেন কী?’ তিনি বললেন,
((يَفْتَحُ اللَّهُ عَزَّ وَجَلَّ لَهُ عَمَلًا صَالِحًا قَبْلَ مَوْتِهِ ثُمَّ يَقْبِضُهُ عَلَيْهِ)).
“তার মৃত্যুর আগে মহান আল্লাহ তার জন্য নেক আমলের (দরজা) খুলে দেন। অতঃপর তার উপর তার মৃত্যু ঘটান।” (আহমাদ ১৭৭৮৪, ত্বাবারানীর কাবীর ৭৩৯৮নং)
এক বর্ণনায় আছে, “পরিশেষে তিনি তার প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে যান।” (ইবনে হিব্বান ৩৪২-৩৪৩নং)
এক বর্ণনায় আছে, “পরিশেষে তার চারিপাশের লোকেরা তার প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে যায়।” (ত্বাবারানীর কাবীর ১৬৯৪, ত্বাবারানীর আওসাত্ব ৩২৯৮নং)।
এক বর্ণনায় আছে, “পরিশেষে তার প্রতিবেশী লোকেরা তার প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে যায়।” (হাকেম ১২৫৮নং)
এক বর্ণনায় আছে, “পরিশেষে তার প্রিয়জন তার প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে যায়।” (ত্বাবারানীর কাবীর ১৬৯৪, ত্বাবারানীর আওসাত্ব ৩২৯৮নং, সিঃ সহীহাহ ১১১৪, সঃ তারগীব ৩৩৫৮নং)

মহানবী (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন,
((مَا مِن مُسلمٍ ابتَلاهُ الله فِي جَسدهِ إلا كَتبَ لَه مَا كان يَعملُ فِي صِحتهِ ، مَا كَان مَريضاً ، فإن عَافاهُ عَسَّلَهُ، وإِن قَبَضهُ غَفرَ لَه)).
“যখনই কোন মুসলিমকে তার শরীরে আল্লাহ পরীক্ষা করেন (তাকে অসুস্থ করেন), তখনই যতদিন সে অসুস্থ থাকে, ততদিন তার জন্য সেই আমলের সওয়াব লিখেন, যা সে সুস্থ অবস্থায় করত। অতঃপর তিনি যদি তাকে সুস্থ করেন, তাহলে তাকে মধুর বানান। আর মৃত্যুদান করলে তাকে ক্ষমা করেন।” (বুখারীর আল-আদাবুল মুফরাদ ৫০১নং)

বলা হয় যে, কেউ উপকার করলে আল্লামা আলবানী (রাহিমাহুল্লাহ) তাকে এই বলে দুআ দিতেন, ‘আসসালাকাল্লাহ।’ (আল্লাহ তোমাকে মধুর বানান।) মহান আল্লাহ আমাদেরকেও যেন আমরণ মধুর ও মধুরা রাখেন। আমীন।


সংগ্রহে : আব্দুল হামীদ আল-ফাইজী আল-মাদানী

Tags

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close