preloder
প্রশ্নোত্তর

প্রশ্ন  : আল্লাহর প্রতি পূর্ণ আস্থা বাদ দিয়ে বাংলাদেশের সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে? যারা এই অন্যায় করেছে তাদেরকে কি মুসলিম বলা যাবে?

সাবিবর/কানাডা। 

উত্তর : বাংলাদেশের সংবিধান ইসলামী শরী‘আতের আলোকে রচিত নয়। এতে ইসলামবিরোধী বহু ধারা রয়েছে। ‘আল্লাহর প্রতি পূর্ণ আস্থা’-যে বাক্যটি সংবিধানে ছিল তা দেশের সংখ্যাগরিষ্ট জনগণের ধর্মীয় অনুভূতিকে আকৃষ্ট করার জন্য নামকাওয়াস্তে তৎকালীন সরকার যুক্ত করেছিল। বাহ্যত বাংলাদেশের আইন, বিচার ও প্রশাসনে এ বাক্যের কোনই ভূমিকা ছিল না এবং এখনো নেই। সুতরাং আইন ও বিধান রচনায় আল্লাহর উপর পূর্ণ আস্থার প্রতিফলন কখনই যেখানে ছিল না, সেখানে সংবিধানে বাক্যটি থাকা বা না থাকা বিশেষ কোন গুরুত্ব বহন করে না। এজন্য সকল সরকারই আল্লাহর আইন লংঘনের অভিযোগে অভিযুক্ত। যদিও এর উপর বিচার করে কাউকে মুসলিম বা অমুসলিম ঘোষণা করা যাবে না। কেননা তারা প্রকাশ্যে ইসলাম পরিত্যাগের ঘোষণা দেয়নি। অবশ্য এটা সুনিশ্চিত যে, তারা প্রকৃত ঈমানদার নন (নিসা ৬৫)। আল্লাহর আইন লংঘন করে অবিরতভাবে যে পাপ তারা করে যাচ্ছেন, তার জন্য তাদেরকে ক্বিয়ামতের দিন কঠিন শাস্তির সম্মুখীন হ’তে হবে (মায়েদাহ ৪৯৫০)

দারুল ইফতা
 হাদীছ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ

#SotterDikeAhobban


Tags

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close